মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

জাতীয় ও ধর্মীয় দিবস উদযাপনঃ

 বিগত বছর ২০টি জাতীয় ও ধর্মীয় দিবস উদযাপন করা হয়।বর্তমান বছরে ইতোমধ্যে ১৩টি জাতীয় ও ধর্মীয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে।বর্তমান বছরে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ প্রতিরোধে ২৮ টি সভা করা হয়।

 

পবিত্র রমযান মাসে তাফসীর মাহফিলের আয়োজন করা হয়। 

প্রত্যেক বৎসর পবিত্র রমযান মাসে মাস ব্যাপী তাফসীর মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া রমযান মাসে আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদে ১টি ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

 

জাতীয় শিশু কিশোর সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতাঃ

জাতীয় শিশু কিশোর সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা প্রতি বছর উপজেলা পর্যায়ে ১৫টি এবং জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে ১টি করে ২টি অনুষ্ঠান বাস্তবায়ন করা হয়।এতে করে ছাত্র-ছাত্রীদের সুপ্ত প্রতিভা,জ্ঞান,মেধা ও মননশীলতার বিকাশ ঘটে।

 

 চাঁদদেখাঃ

আরবী পঞ্জিকা সন অনুযায়ী জেলা প্রশাসন ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে প্রতিমাসে চাঁদদেখা কমিটির সভা আয়োজন করা হয় এবং প্রধান কার্যালয়ে রির্পোট দেয়া হয়জেলা প্রশাসক মহোদয় জেলা চাঁদ দেখা কমিটির সভাপতি

 

 জাতীয় ও সামাজিক বিষয়ে ভূমিকা পালন করা হয়।

            সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ প্রতিরোধে বিভিন্ন মসজিদে বুকলেট ও লিফলেট বিতরণ করা হয় এবং ইমামদের জুমআ’র খুৎবায়    

           বক্তব্য প্রদানের অনুরোধ জানানো হয়। দুর্নীতিদমন সপ্তাহ উপলক্ষে মসজিদে মসজিদে দূনীতি দমন কমিশনের বুকলেট বিতরণ করা হয়।

 

 ইমাম প্রশিক্ষণের জন্য ইমাম সংগ্রহ বাছাই ও প্রশিক্ষণে প্রেরণঃ

জেলা কোটা অনুযায়ী নিয়মিত প্রশিক্ষণের জন্য ইমাম সংগ্রহ ও জেলা কমিটির মাধ্যমে বাছাই করা হয়। বাছাই এর পর ইমামদেরকে ৪৫দিনের প্রশিক্ষণের জন্য পাহাড়তলীস্থ চট্টগ্রাম ইমাম প্রশিক্ষণ একাডেমীতে প্রেরণ করা হয়। কৃষি বনায়ন বাস্তবায়ন, হাস-মুরগী ও গবাদি পশু পালন, পরিবেশ ও সামাজিক উন্নয়ন, মৎস্য চাষ, প্রাথমিক চিকিৎসা ও ইসলামিয়াত সহ ইমামদেরকে বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়ে থাকে।

 

যাকাত সংগ্রহ ও বিতরণঃ

জেলার বিত্তবানদের থেকে রমযান মাসে যাকাত সংগ্রহ করা হয় ও পরবর্তীতে দারিদ্র বিমোচনের লক্ষ্যে জেলা যাকাত কমিটির মাধ্যমে বাছাই পূর্বক শরীয়া ভিত্তিক যাকাত পাওয়ার যোগ্য দুস্থ ব্যক্তি এবং গরীব, মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদেরকে যাকাতের অর্থ প্রদান করা হয়।

 

 ইফা প্রকাশনার বই বিক্রিও বইমেলায় অংশ গ্রহণঃ

ইসলামিক ফাউন্ডেশন নিজস্ব প্রকাশনার মাধ্যমে কুরআন হাদিস, ইতিহাস, সাহিত্য, বিজ্ঞান, দর্শন, ফিকাহ, নবী-রাসূল ও আউলিয়া কিরামদের জীবনী, শিশুতোষ গ্রন্থ সহ প্রায় সাড়ে তিন হাজারের ও অধিক শিরোনামের বই পুস্তক প্রকাশ করেছে। এ সব মূল্যবান গ্রন্থদি প্রধানকার্যালয় সহ সকল বিভাগ, ৬৪টি জেলা কার্যালয়ের মাধ্যমে বিক্রয় করা হচ্ছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের নিয়ন্ত্রণাধীন বই বিক্রয় কেন্দ্র আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ- মার্কেটের নীচতলায় অবস্থিত।

 

আন্দরকিল্ল­া শাহী জামে মসজিদের রক্ষনা-বেক্ষনঃ

এই মসজিদ টি  প্রায় ৪০০ (চারশত)  বছরের পুরাতন এবং আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদে পাঞ্জেগানা, জুম’আ ও ঈদের জামাতে নিয়মিত প্রায় ৮,০০০ হাজার ধর্মপ্রাণ মুসল্লি একসাথে নামাজ আদায় করতে পারেন। জরাজীর্ন মসজিদটি পূণঃ নিমার্ন অতীব জরুরী।

 

মার্কেট ব্যবস্থাপনাঃ

আন্দরকিল­া শাহী জামে মসজিদের ২৩৫টি দোকান সম্বলিত একটি মার্কেট আছে। মার্কেটের আয়দ্বারা মসজিদের খতিব, ইমাম ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা ও মেরামত- সংরক্ষণের ব্যয় নির্বাহ করা হয়।

 

 হজ্জ ব্যবস্থাপনাঃ

হজ্জ মৌসুমে সরকারী ব্যবস্থাপনায় হাজী সংগ্রহ করা, হাজীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা ও সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করা হয়। গত বৎসর চট্টগ্রাম জেলা থেকে ৫৯ জন হাজীকে সরকারী ব্যবস্থাপনায় হজ্জে প্রেরণ করা হয়।

 

পাঠাগার পরিচালনাঃ

আন্দরকিল­া শাহী জামে মসজিদে ১১৭৯৮টি পুস্তকের সমাহারে একটি পাঠাগার পরিচালিত হচ্ছে এবং প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৩০ হতে ৪০ জন পাঠক বই ও পত্রিকা অধ্যয়ন করেন।

 

ইমাম মুয়াজ্জিন কল্যাণ ট্রাস্টঃ

ইমাম মুয়াজ্জিন কল্যাণ ট্রাস্টের মাধ্যমে দুঃস্থ ইমাম ও মুয়াজ্জিনদেরকে সুদমুক্ত ঋণ দেয়া হয়। ইতোপূর্বে ১,৯২,০০০/= (এক লক্ষ বিরানববই হাজার) টাকা ঋণ প্রদান করা হয়েছে এবং ১,১৫,০০০/- (এক লক্ষ পনের হাজার) টাকা দুঃস্থ ইমামকে ৫,০০০/= (পাঁচ হাজার) টাকা হারে আর্থিক সাহার্য্য প্রদান করা হয়। ২০১২-১৩ অর্থ বছরে ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের নিকট সুদ মুক্ত ঋণ বাবত ৪,৫০,০০০/- (চার লক্ষ পঞ্চাশ হাজার) টাকা এবং আর্থিক সাহাযে ১,৩৫,০০০/- প্রদান করা হবে।

 

           পাহাড়তলী থানাধীন পুরাতন হাজী ক্যাম্প রক্ষনা বেক্ষণঃ

            প্রায় ৯.৭৫ একর জায়গা নিয়ে পাহাড়তলী থানাধীন ১৯৫২সালে প্রতিষ্ঠিত পুরাতন হাজী ক্যাম্পটি অবস্থিত। উক্ত পুরাতন হাজী ক্যাম্পটি রক্ষণা বেক্ষণ করার দায়িত্ব ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর উপর ন্যস্ত করা হয়েছে। 

 

জেলা প্রশাসন ও বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের সাথে যোগাযোগঃ

জাতীয় ও সামাজিক ইস্যুতে জেলা প্রশাসন ও বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে সহযোগিতা দানের নিমিত্ত ইসলামিক ফাউন্ডেশন সর্বদা প্রস্ত্তত রয়েছে।